ফাইনাল খেলা অ্যাট বাংলার বিবেক! by Mohammad Hasan

ফাইনাল খেলা অ্যাট বাংলার বিবেক!

পৃথিবীর কোন এক প্রান্তে একটি খেলার মাঠে চলছে তুমুল ডামাডোল। জায়গার নাম বাংলার বিবেক। এই গল্পের নায়ক হচ্ছে একজন সাংবাদিক(বোকা) /তো চলুন গল্পে প্রবেশ করি।

বোকার ঘুম ভাঙ্গল এক সাংবাদিকের ফোনে।বিকেলের ঘুম ভাঙলে খুব একটা বিরক্ত লাগেনা কিন্ত তার আজকে খুবি বিরক্ত লাগছে কারন সে জানে ফোনটি ধরলেই তাকে আবার দৌড়াতে হবে কোথাও না কোথাও।

সাংবাদিকঃ হ্যালো ভাই বলুনতো কি করছেন আপনাকে কখন থেকে ফোনে করছি।

বোকাঃ সরি ভাই চোখটা লেগে এসেছিল, বলুন কি ব্যাপার।

সাংবাদিকঃ মাঠে চলে আসুন, ব্রেকিং নিউজ পেয়ে যাবেন, আমি ওখানেই যাচ্ছি ,রাখলাম।

বোকাঃও আচ্ছা,ধন্যবাদ।

বোকা দ্রুত চলে আসল মাঠে। চিতকার চেচামেচিতে বিচ্ছিরি অবস্থা। পাবলিকের কাছে বোকা যা জানতে পারল তা হল আজ মাঠে ফাইনাল খেলা হওয়ার কথা টিম এ এবং টিম বি’র মধ্যে।কিন্তু বি টিম খেলতে রাজি হচ্ছে না এবং ওয়াকওভারও দিচ্ছে না।তো বোকা গেল মাঠের মাঝখানে সেখানে দুই টিম এবং খেলার কমিটির বাক বিতণ্ডা চলছে।কিছু সাংবাদিক ছবি তুলছে এবং তাদের সামনে গিয়ে কিছু লোক পোজ দিচ্ছে আর হাত নেড়ে চিতকার করছে”এই আমি সুশীল ক্রিয়া বোদ্ধা, আমি সুশীল”/যাহোক বোকা সোজা গিয়ে বি দলের কাছে জানতে চাইল কি ব্যাপার আপনারা খেলছেন না আবার  ওয়াকওভারও দিচ্ছেন না ব্যাপার কি।

বি দলঃআর বলবেন না ভাই বলে কিনা এটা হোম ভেনু তাই ওদের দলের ক্যাপ্টেন নাকি হবে ম্যাচ রেফারী।

সাথে সাথে এ দলের প্রতিক্রিয়াঃ আরে ভাই আমাদের ক্যাপ্টেন একজন যোগ্য ব্যাক্তি তার পরিচালনাতেই খেলা হবে।

বোকা ঠিক ব্যাপারটি বুঝতে পারল না তাই সে ক্রিয়া কমিটির প্রধানের কাছে জানতে চাইল”একটি দলের ক্যাপ্টেন রেফারী হওয়াটি কি যুক্তি যুক্ত ?

ক্রিয়া কমিটির প্রধানঃ দেখুন আমাদের রুলবুকে কোথায় লেখা নেই যে দলের ক্যাপ্টেন রেফারী হতে পারবে না। আর রেফারী নির্বাচন আমাদের এখতিয়ারে নেই।তাছাড়া তিনি নিজে যখন আমাদের ক্রিয়া কমিটি গঠন করেছেন আমাকে প্রধান করেছেন তো তিনি রেফারী হলে অসুবিধা কোথায় বলুন।

বোকাঃ অ্যাঁ দলের ক্যাপ্টেন ক্রিয়া কমিটি গঠন করেছে!! (বোকার মাথা আরো ঘুরিয়ে যায়)

বলে কি লোকটা (বিড়বিড় করে)

ক্রিয়া কমিটির প্রধানঃ আমায় কিছু বললেন ? বোকা না সুচক উত্তর দিয়ে সরে আসে ওখান থেকে। বোকা এবার যায় সেই  ক্রিয়া বোদ্ধাদের সাথে কথা বলতে

বোকাঃ আচ্ছা দলের ক্যাপ্টেন রেফারী হতে চাইছেন এটা কি করে সম্ভব ?

ক্রিয়া বোদ্ধা একঃ আপনি কি গাঁজাখোর ?

বোকাঃমানে?

ক্রিয়া বোদ্ধা একঃগাঁজাখোরের মত প্রশ্ন করলেন যে বড়।আপনি কি জানেন না এ দলের ক্যাপ্টেনের পিতাকে বলা হত বাংলার বিবেক আর তার সন্তান রেফারী হতে পারবেনা এটা কি মানা যায় । আপনার মত গাজাখোরদের এই বাংলার বিবেকে ঠাই নেই ঠাই নেই।

বোকা মানে মানে কেটে পড়ল তার কাছ থেকে সামনেই আরেক বোদ্ধা তার কাছে জানতে চাইল

এ দলের ক্যাপ্টেন রেফারী হিসেবে কতটা যোগ্য?(আগের বারের কথা মনে রেখে এবার বোকার ডিপ্লোম্যাটিক প্রশ্ন)

বোদ্ধা দুইঃদেখুন এটা একটি অসাধারন প্রশ্ন।এই প্রশ্নের উত্তর দেব ভেবে আমার গর্ববোধ হচ্ছে।এ দলের ক্যাপ্টেন বৈজ্ঞানিক ভাবে তার যোগ্যতা প্রমানিত করেছেন। সুদূর মঙ্গলের ভেরিফাইড গননা বিজ্ঞানী তা প্রমান করেছেন।তাছাড়া এই বাংলার সবচে নামি যেই মেডিছিন  “মলমে চেতনা” ওই ক্যাপ্টেনের পারিবারিক ঐতিহ্য । এই লোক ছেড়ে আর কোথায় পাবেন যোগ্য রেফারী

বোকা এবার আসলেই বোকা বনে রইল । কিন্তু তাকে তো একটি স্টেটমেনট লিখতে হবে তাই এবার সে গেল ধারাভাষ্যকারের কাছে

ধারাভাষ্যকারঃ জি দেখুন সবারই ছাড় দেয়ার মানসিকতা থাকতে হবে।

বোকা এবার একটু আশস্থ হয়ে বলল কিন্তু বি দল এখানে কিই বা ছাড় দিতে পারে?

ধারাভাষ্যকারঃ আহা দেখুন রেফারী তো আর একজন হয়না সাইড লাইনে আরো দুজন দাড়ানো থাকে এদের একজন বি দলের থেকে নেয়া হবে তা হলেই তো হল।

বোকা যথারীতি আশাহত তো এবার সে গেল মাঠের নিরাপত্তা বিভাগের প্রধানের কাছে?

বোকাঃখেলা যদি না হয় তবে দর্শকরা কি টাকা ফেরত পাবে?

নিরাপত্তা বিভাগের প্রধানঃ খেলা হবেই

বোকাঃতা কিভাবে বি টিম তো খেলবে না রেফারী পরিবর্তন না হলে

নিরাপত্তা বিভাগের প্রধানঃবি টিম কে তো এভাবেই ডিসকোয়ালিফাইড করা উচিত এরা খেলায় হারবে জেনে ষড়যন্ত্র করে মাঠ ধরে নাড়াচাড়া করেছে, মাঠের ক্ষতি করেছে। আমরা সর্ব সমস্যার মেডিছিন মলমে চেতনা লাগিয়ে মাঠ প্রস্তত করেছি ।খেলা এখানে হবেই।বি টিম খেলবে না তো কি হয়েছে আমাদের এ টিমের অতিরিক্ত খেলোয়ার দিয়ে দল গঠন করে খেলা হবে আর দর্শক সেই খেলা দেখবে, উপভগ করবে এবং এ টিমের প্রত্যাশিত জয়ের পর দর্শক নাচবে।বি টিম এই মাঠ কে মুরগীর খোয়ারে পরিনত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত দর্শকদের নিয়ে এই ষড়যন্ত্র প্রতিহত করা হবে। ……………………………………………………………………………।

গল্পটি এখনো চলছে এই গল্পের শেষ কোথায় আমার জানা নেই কেননা এ দল আর বি দলে সবসময়ই বিভক্ত থাকব আমরা আর খেলার মর্যাদার নয় স্বীয় দলের বিজয় উল্লাস দেখতেই পছন্দ করব।  আর এরকম বোকারা ঘটনার একটি জাস্টিফাইড স্টেট দাড় করানোর ব্যর্থ চেষ্টা চালিয়ে যাবে একসময় তারাও বায়াস থটের ভিড়ে হারিয়ে যাবে।

(এই মূল্যহীন লেখাটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ। লেখাটি সম্পূর্ণ কাল্পনিক। নিজ দায়িত্তে বাস্তব চরিত্রের সাথে মিল খুজুন,মিল পেলে লেখক দায়ী নয় ….)

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s