তোমরা যারা চেতনার ফেরি করো (কিন্তু কিছুই বোঝ না)

kjhkjh 7

By শাফকাত রাব্বী অনীকঃ

প্রিয় চেতনার ফেরিওয়ালা ও ফেরিওয়ালিরা। তোমরা এই মুহূর্তে যা দেখতে পাচ্ছো তাহলো তোমাদের দেশীয় ও বিদেশী মুরুব্বিদের মাথায় আকাশ ভেঙ্গে পড়ার দৃশ্য। তোমাদের অসহায় বেজী-মুখি মুরুব্বির দল এখন বাঁশের খুঁটি হাতে পড়ন্ত আকাশ ঠেকা দেবার প্রানান্ত চেষ্টা চালাচ্ছেন। তোমরা হয়তো বুঝতে পারছোনা যে বাংলাদেশের স্বাধীনতার চেতনার আড়ালে তোমাদেরকে দিয়ে ভারতের নির্লজ্জ স্বার্থ সিদ্ধির ধান্দায় নামিয়েছিল তোমাদের স্যারেরা। ভাগ্যিস, দেশের সব তরুণেরা তোমাদের মতো চেতনার-মায়া-বড়ি খেয়ে ভারতের হাতে নিজের প্রানপ্রিয় দেশ তুলে দিতে রাজী হয়নি। আর হয়নি বলেই তো শুরু হয়েছে স্বাধীনতার তথাকথিত সপক্ষের শক্তির সাথে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ ও ইসলামের হিম্মতের লড়াই।

তোমরা যে লড়াই দেখছো, তার আপাতত ফলাফল যাই হোক, এই লড়াইয়ে জিতবে কিন্তু সেই পক্ষ, যার সাথে থাকবে দেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ। আশাকরি তোমাদেরকে জাফর স্যারের মতো মস্ত বড় বৈজ্ঞানিক হতে হবে না এটুক বুঝতে যে ভারতের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ তোমাদের সাথে থাকলেও, বাংলাদেশের সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষ আর সাথে নেই। বর্তমান পরিস্থিতিতে পাগলাটে কিছু ফ্যাসিস্ট ছাড়া তোমাদের পাশে দাড়িয়ে হাঁক-ডাক দেবার মতো মানুষ পেতে বড্ড কষ্ট হবে তোমাদের।

যেমন ধরো জাতীয়তাবাদীরা তোমাদের সাথে নেই সেই অনেক দিন ধরেই। কোন সাচ্চা ইসলামপন্থীতো নেই-ই, এমনকি মাজার পুজারি-মাইজভান্ডারিরাও নেই। তাবলিগিরা নেই। দেওবন্দিরা নেই। এখনও কিছু লজ্জা-সরম বাকী আছে, এমন কমিউনিস্টরা নেই। সুশীল বাবুদের মাথার বুদ্ধি ও বিদ্যা তোমাদের চাইতে সবসময়ই কিঞ্চিত বেশি। তাই আসন্ন মহাবিপদ আঁচ করতে পেরে তারাও আর তোমাদের সাথে নেই। বাকী ছিল শুধু বিচিত্র চরিত্রের সাবেক স্বৈরাচার। সেই উনিও এখন তোমাদের ছেড়ে পালাতে যদি আত্মহত্যা করতে হয় তাতেও রাজী!

প্রিয় ফেরিওয়ালা ও ফেরিওয়ালিরা। আর কতো মানুষ তোমাদের পিছন থেকে সরে গেলে তোমরা কনফার্ম হয়ে যাবে যে তোমরা এতিম?

আমাদের ভদ্র কথায় বা যুক্তিতে কখনই কাজ হয়নি। বৈজ্ঞানিক জরিপে কাজ হয়নি। সারা দুনিয়ার বিখ্যাত সব সংস্থা কিংবা পত্রিকার কথায় কাজ হয়নি। তোমাদের দাদার বাড়ি ছাড়া, পৃথিবীর বাদ বাকী সব দেশগুলো যখন একে একে তোমাদের ছেড়ে সরে গেলো, তখনও কাজ হয়নি। এখন পরিস্থিতি এতোই খারাপ যে, শেষ পর্যন্ত একজন বিশ্ব-বেহায়াকে আত্মহত্যা করার হুমকি দিয়ে প্রমান করতে হচ্ছে যে তোমাদের সংস্পর্শ কতোটাই জঘন্ন! একজন বিশ্ব-বেহায়াও যখন তোমাদের ছাড়ার পারমিশন না পেলে,নিজের জীবনটাই ছাড়তে রাজী হয়ে যান, তখন নিশ্চয় বুঝতে বাকী থাকে না তোমরা কতোটাই বিষাক্ত। বিশ্ব-বেহায়াকে হয়তো তোমরা মারত্মক ভয় দেখিয়ে, পিটিয়ে, আধা-মরা করে বাধ্য করাতে পারবে তোমাদের সাথে আবার নির্বাচন-নির্বাচন খেলতে। কিন্তু মনে রেখো, এরশাদ সাহেব কিন্তু “আত্ন-হত্যার অভিপ্রায়” ব্যাক্ত করে ফেলেছেন। আর এতেই তোমাদের শরীর দিয়ে দুর্গন্ধ বেরোচ্ছে। ওনার এখন সত্যি সত্যি না মরলেও চলবে। অভিপ্রায়-ই যথেষ্ট।

আশাকরি এতো উন্মাদনার মাঝে, তোমাদের উর্বর মস্তিষ্কে একটু একটু করে বোধদয় হতে শুরু করবে। তোমরা হয়তো নিজেদেরকে কিছু কঠিন প্রশ্নও করতে শুরু করবে। তোমরা হয়তো জানতে চাইবে, যে দেশকে এতো ভালবাস বলে ভেবেছিলে, যার স্বাধীনতার চেতনা এতো বেশি বেশি করে ফেরি করেছিলে, সেই দেশেরই ৭০% মানুষ তোমাদেরকে কেন এভাবে ছুঁড়ে ফেলে দিল? কেন তোমাদের ফেরি করা পণ্য শুধুমাত্র একটা দলের একপাল উন্মাদ ছাড়া আর কেউই কিনল না?

তোমরা হয়তো ধীরে ধীরে বুঝতে পারবে যে মানুষ নিয়েই হলো একটা দেশ। আর মানুষকে ভালবাসাই হলো দেশপ্রেম। হয়তো দেরীতে হলেও বুঝতে পারবে যে দেশের সংখ্যা গরিষ্ঠ মানুষের চিন্তাধারা আর বিশ্বাসের প্রতি প্রচণ্ড অবজ্ঞা, ঘৃণা, আর জিঘাংসা নিয়ে আর যাই হোক দেশপ্রেম হয় না। সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষকে রাজাকার কিংবা ছাগু ডেকে নিজেদেরকে সাচ্চা স্বাধীনতার সপক্ষের শক্তিও বানানো যায় না।

পাগলা হাতির পিঠে চড়ে, গ্রামের সবাইকে ধাওয়া দিয়ে বেড়ানো প্রচণ্ড অসুস্থ প্রকৃতির একটা বিনোদন। এই অসুস্থ বিনোদনে বিমোহিত হয়ে তোমরা ভুলেই গিয়েছিলে যে হাতি ধরাশায়ী হয়ে মাটিতে পড়লে তোমাদের কি হবে? গ্রামবাসীর এতো এতো খালি হাত। নির্বোধ হস্তি-আরোহীর পিঠে সইবেতো?
ডিসেম্বর ৫, ২০১৩

7 thoughts on “তোমরা যারা চেতনার ফেরি করো (কিন্তু কিছুই বোঝ না)

  1. Ei deshe to achei 2ta group. Awamileague ar anti awamileague. Deseher manush ja apnadher sathe ache ta apnadher andholon dekhai buja jache..Apnader sathe na thakle ki hobe..na thakle to agun dia puraia marben. Obosso apnara manush marle kono somossa nai..apnara asthiker dhol..manush marlao behast apnader nischit.

    Chetonadarira hoito boka, kintu apnader moto dhormo bebsha kore khai na.

  2. অনিক ভাই, আপনি ভুলে যাচ্ছেন কেন , এখন ও আপনি চেতনাৎসি কিংডম বেহায়াসিনাল্যাণ্ড-এ আছেন ?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s