সুজাতার সফর

3

Zia Hassan

আপনার দেশকে নিয়ে আপনি যা ইচ্বছা বলতে পারেন কিন্তু একটা বিদেশির মুখে শুনলে আপনার রাগে গা জ্বলে যাবে।
এই জন্যেই , সারা প্রিথিবিতেই কূটনীতিকরা আরেকদেশ সম্পর্কে কি বলবেন, তাতে অনেক সতর্ক থাকেন । এইটা কূটনৈতিক শিষ্টাচার।
দুইটা দেশের কূটনীতিকরা যখন এই টুকু শিষ্টাচার বাদ দিয়ে কথা বলে তখন বুঝে নিতে হয় যে,দেশ দুইটির সম্পর্ক আর স্বাভাবিক নাই।

এরশাদ এর সাথে ভারতীয় স্বরাষ্ট্র সচিব সুজাতার সাক্ষাতকার শুনে আপনি নিশ্চিত হতে পারেন। ভারত বাংলাদেশ সম্পর্কে সেই শিষ্টাচার রক্ষার প্রয়োজনীয়তা আর থাকছে না। এবং জাতি হিসেবে বাংলাদেশের বাঙ্গালি জাতি সব ধরনের আত্মমর্যাদা বিসর্জন দিয়ে এখন জাস্ট একটা লেঙ্গুট পড়ে বসে আছে। আমাদের আর কোন লজ্জার অবিশিষ্ট নাই।

আওয়ামী লীগ যেই নির্বাচন করছে তা একটা বিতর্কিত নির্বাচন। এই জন্যে বাংলাদেশে এখন প্রতিটা মানুষের জিবনে অশনিসংকেত নেমে এসেছে। এবং এই নির্বাচন হলে আরো অনেক বছর ধরে বাংলাদেশ একটা অস্থিতিশীলতার মধ্যে পরবে।

কিন্তু, এই নির্বাচন নিয়ে সুজাতা বাংলাদেশে এসেছেন এবং জনে জনে গিয়ে ওকালতি করেছেন সেই দৃশ্য দেখতে হলও।

উনি এরশাদকে বলেছেন ” জাপা নির্বাচনে না গেলে যদি অন্য কোনো দল জয়ী হয়, তাহলে জামায়াতে ইসলামীর উত্থান হবে। ”
মিস সুজাতা। এইটা বাংলাদেশের মানুষের কন্সারন। হু ইজ ইন্ডিয়া টু টেল জামাত আসলে কি হবে নাকি হেফাজত আসলে কি হবে নইলে নাস্তিক আসলে কি হবে ? আমরা কি বলি নাকি, তোমাদের বিজেপি আসলে কি হবে ? ডোন্ট পক ইউর ডারটি নজ অন আস।

সুজাতা সিং বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনেক ভালো কাজ করেছেন।করতেই পারে। উনি আমাদের পাচ বছর মেয়াদি প্রাইম মিনিস্টার। করবেই তো।

কিন্তু, সুজাতা সিং আপনি কে আমাদের দেশে এসে বলার কি ভাল কে খারাপ ? কোন সাহসে আপনারা বাংলাদেশে এসে প্রকাশ্যে একটা রাজনৈতিক দলের পক্ষ নিয়ে ওকালতি করছেন ?
এই নির্লজ্জ হস্তক্ষেপে , আওয়ামী লীগ বিএনপি সহ সকল দল এর লোক এর লজ্জায় অপমানে মাথা হেট হয়ে যাচ্ছেনা এইটা চিন্তা করেই লজ্জা পেতে হয়।

এবং সুজাতা সিং কে গন্ধমাধ্যমের কর্মীরা যেই ভাবে বাংলাদেশের রাজনীতি নিয়ে ওপেন প্রশ্ন করছে সেইটা দেখে যে কোন মানুষের চোখের পানি চলে আসা উচিত।

আমরা একটা দেশ! বাংলাদেশ!! আমরা স্বাধীন!!! ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তের বিনিময়ে আমরা এই স্বাধীনতা পাইছি। সেই স্বাধীনতা থেকে প্রাপ্ত আত্মমর্যাদা এরা সুয়ারেজে ফেলে দিছে।
শেম শেম শেম!!

মুক্তিযুদ্ধ, স্বাধীণতা ও আমাদের ভবিষ্যত

By Shikin Aman 

মুক্তিযুদ্ধ আমাদের বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে গৌরবময় অধ্যায়। আড়াইশত বছর পরাধীনতার পরে আমরা একটা স্বাধীণ দেশ হিসেবে মাথা তুলে দাড়াই এই মহান যুদ্ধের মাধ্যমে। এই যুদ্ধে যারা আত্মত্যাগ করেছেন তারা আমাদের জাতীয় বীর।দেশের একটা ক্রান্তিলগ্নে তারা আমাদের মুক্তির পথের দিশারী ছিলেন। তাদের সেই মহান আত্মত্যাগের সঠিক মূল্যায়ন কি আমরা করতে পেরেছি, নাকি আমরা তাদের অর্জনকে শুধু ক্ষুদ্রস্বার্থে ব্যাবসার কাজে লাগাচ্ছি? আমাদের দেশের উন্নতির জন্য কি এই মহান স্মৃতি পথিকৃত এর ভুমিকা রাখছে, নাকি এর অপব্যাবহারে আমাদের উন্নতি বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে? দেশের উন্নতির জন্য ভবিষ্যত সরকারের কাছে আমাদের কি চাওয়া থাকতে পারে?

Continue Reading

জামাত এবং সংবিধানের অপব্যবহার

by Shafiqur Rahman

গনতন্ত্র হলো একটি মূল্যবোধের সিস্টেম, গনতন্ত্র একগুচ্ছ আইনকানুন নয়। কোন দেশের বৃহদাংশ জনগন যদি এই মূল্যবোধের সিস্টেম-এর সারাংশ নিজেদের মধ্যে অন্তস্থ না করতে পারে তবে কোন শতশত আইনকানুনও দেশের গনতন্ত্রকে রক্ষা করতে পারে না।Continue Reading