নুরালদীনে লিখতে হলেঃ

কিছু মামুলি শর্ত মেনে যে কেউ নূরালদীনে লেখা পাঠাতে পারবেন নিচে প্রদত্ত ই-মেইলে। আপনার লেখা নিয়মিত ভাবে কিছুদিন প্রকাশিত হবার পরে, আপনাকে নুরালদিনে সরাসরি লেখা প্রকাশ করার এক্সেস দিয়ে দেয়া হবে। আমাদের শর্তগুলো খুবই সাধারণ। যেকোন মতাদর্শের লেখকের এগুলো মানতে সমস্যা হবার কথা না। শর্তগুলো নিচে দেয়া হলো:

১) মিথ্যে কথা লেখা:

ব্লগে লেখালিখি করতে গেলে সব তথ্য সবার কাছে সব সময় থাকে না। একারণে নির্দোষ তথ্যগত ভুল ত্রুটি যে কারো হতেই পারে। আবার কোন কিছু নিয়ে পুরাপুরি ভাবে কনফার্ম না থেকেও লেখা যেতে পারে, যদি লেখক উল্লেখ করে দেন যে ঘটনার সত্যতা নিয়ে তার কিছুটা ডাউট আছে, তারপরেও লিখছেন। কিন্তু কেউ যদি ভেরিফাই করার কোন উপায় নেই যেনেও কোন সেনসিটিভ ঘটনাকে একেবারে সত্য বলে চালিয়ে দিতে চান, তাহলে তা প্রকাশ করা হবে না।

একটা সাধারণ উদাহরণ দিচ্ছি। ধরুন আপনি লিখলেন যে অমুক গুরুত্বপূর্ন ব্যক্তি তমুক গুরুত্বপূর্ন ব্যক্তিকে ৫০ কোটি টাকা ঘুষ দিয়ে তমুক গরুত্ব্পুর্ন কাজ করিয়েছেন। এধরনের কথা যদি ভেরিফিকেশনের কোন উপায় নূরালদীনের না থাকে, তাহলে সে লেখা প্রকাশিত হবে না। আমরা কারো তথাকথিত গোমর ফাঁক, মুখোস উন্মোচন, কিংবা স্রেফ প্রোপাগান্ডার বাহক হতে চাই না।

২) গালাগালি কিংবা ঘৃনা বিদ্বেষ ছড়ানো:

গালাগালি শব্দটি আপেক্ষিক। যেমন ধরুন, শাব্দিক অর্থে হারামজাদা একটা মারাত্মক গালি। কিন্তু এই মারাত্মক গালিটি আবার আদর করেও কেউ কাউকে ডাকতে পারেন। একারণে নুরালদীন নিষিদ্ধ শব্দের কোন লিস্ট বানাবে না। তবে কথার এঙ্গেল কিংবা ধরণ দেখে যদি মনে হয় গালাগালি, হিংসা-বিদ্বেষ, কিংবা ঘৃনা ছড়ানো হচ্ছে, তাহলে তা প্রকাশিত হবে না। আমাদের আকাংক্ষা হচ্ছে যে আমরা নির্মোহভাবে যুক্তি ও পাল্টা-যুক্তি উপস্থাপন করবো আমাদের পাঠকদের সামনে। আবেগি ঘৃনা-বিদ্বেষ ছড়ানোর প্ল্যাটফর্ম অনেক রয়েছে। নতুন আর একটার প্রয়োজন কোথায়?

গালাগালি, ঘৃনা-বিদ্বেষের কিছু উদাহরণ দিচ্ছি। কারো নাম বিক্রিত করা (যেমন, আনোয়ার কে জানোয়ার, কিংবা আশিক কে আশিক্কা ইত্যাদি), কাউকে নিয়ে সরাসরি নোংরা কথা বলা (যেমন, কোন ব্যক্তিকে বা গোষ্ঠীকে পশুপাখি কিংবা কিট পতঙ্গের সাথে তুলনা করা), কারো বয়েস, জেন্ডার, ধর্ম, বর্ণ, চেহারার গঠন, রাজনৈতিক মতাদর্শ ইত্যাদির কারণে নিকৃস্ট কিছুর সাথে তুলনা করা ইত্যাদি।

৩) মার-দাঙ্গা কিংবা সন্ত্রাসের আহ্ববান জানানো:

এই বিষয়গুলোও আপেক্ষিক। প্রতিবাদ কিংবা আন্দোলনের ডাক দেয়া আর সন্ত্রাসের ডাক দেয়া এক জিনিস না। যদিও আমাদের দেশীয় প্রেক্ষাপটে উপরের তিনটি জিনিস প্রায়ই গুবলেট খেয়ে যায়। তারপরেও, যদি লেখার এঙ্গেল কিংবা কথার ধরনে এটা প্রকাশ পায় যে সন্ত্রাস উস্কে দেয়া হচ্ছে, কোন ব্যক্তি বা গোষ্টির নাগরিক অধিকার (আইনী দৃষ্টিতে, আবেগী দৃষ্টিতে না) হরণের উস্কানি দেয়া হচ্ছে, তাহলে এমন লেখা প্রকাশিত হবে না।

রাষ্ট্র কিংবা রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ন সংস্থাসমূহ, সেনা বাহিনী ও অন্যান্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের সমালোচনা করার অধিকার সব লেখকের থাকবে। কিন্তু এদের বিরুদ্ধে উস্কানিমূলক তথ্য কিংবা প্রোপাগান্ডার বাহক নুরালদীন হবে না।

আশাকরি উপরের শর্তগুলো মেনে লিখতে আপনাদের কষ্ঠ হবে না। আমরা এগুলো মেনেই নিয়মিত লিখছি, নিজে লেখার আগে কিছু দিন পড়ে দেখতে পারেন। আর আমাদের নিজেদের দেয়া শর্ত পালনে আমরা নিজেরাই যদি ভুলত্রুটি করে থাকি, তাহলে প্লিজ আমাদের জানান। আমরা নিজেদের শুধরে নেব।

হ্যাপী ব্লগিং, ওয়েলকাম টু নুরালদীন।

লেখা পাঠানোর ঠিকানা:  nuraldeen.writers@gmail.com

 

25 thoughts on “নুরালদীনে লিখতে হলেঃ

  1. এটা কি কোন দলীয় প্রপাগান্ডা, নাকি নিরপেক্ষ ভাবে সকলের লেখা সমান ভাবে দেখা হয় ??? কিছু মনে করবেন না , জাস্ট জানার জন্য জিজ্ঞেস করলাম ।

    • আমাদের প্রয়াস সম্পূর্ণ নিরপেক্ষ নয়। আমরা বাংলাদেশের জন্য লিখি। আপনার লিখা যদি আমাদের উপরোক্ত তিনটি শর্ত মেনে চলে এবং বাংলাদেশের বিপক্ষের না হয় তাহলে অবশ্যই ছাপানো হবে।

  2. ~~~…এই মূহুর্তে দেশের যে পরিস্থিতি, তাতে লেখকের গোপনীয়তা জরুরী। এব্যাপারে আপনাদের নিয়ম কানুন জানতা চাইছি।

    • কমেন্টের জন্য ধন্যবাদ। দুই ভাবে লেখা পাবলিশ হতে পারে। হয় আপনি লেখা পাঠাবেন এবং তা ছাপা হবে, কিংবা আপনি ওয়র্ডপ্রেস অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ব্লগার হিসেবে অ্যাডেড হবেন এবং নিজে পাবলিশ করবেন। বুঝতেই পারছেন যে পরিচয় কতটুকু পাবলিক হবে সেটা পুরোপুরি লেখকের উপর নির্ভর করছে। আমরা পাবলিশ করার ক্ষেত্রে অবশ্যই লেখক যতটা অনুমতি দিবেন ঠিক ততটা পরিচয় বলব, আর আপনি নিজে করার ক্ষেত্রে তো সেটা পুরোটাই আপনার আয়ত্তে। আশা করি উত্তর পেয়েছেন।

      • ভাই আমার ওয়ার্ডপ্রেস একাউন্টটাকে এড করে নিতে চাই এখানে ব্লগার হিসেবে কিভাবে লেখা শুরু করবো ?? জাস্ট পদ্ধতি বলেন।

  3. একটা লেখা পাঠালাম জিমেইল আইডিতে। দয়া করে জানাবেন! লেখা কতটা খারাপ হইসে!🙂

  4. অনেক সময় অনেক লেখা লিখতে মন চায়, কিন্তু লেখার মতো কোন সাইট পাইনা । আপনাদের নিউজ গুলো পড়ে দেখলাম ভালো । এখন থেকে আমিও লেখার চেষ্টা করবো । প্রায় সামওয়্যার ব্লগে লিখি, লেখার পর আনেক পাঠকই পড়েন, মন্তব্য করেন । তখন মনে হয় নিয়মিত লিখি কিন্তু পারিনা সময়ের জন্য ।

  5. Used to write in Somewhere In Blog and Prothom Alo Blog.. but both stopped publishing my blogs for some reason. However, I liked it here in Nuraldeen..Hope you will find my writings publishable.

  6. Wanted to know..Do I only mail you my writings from whatever e-mail account I have? And how will I know if you have accepted/published my blog? Will you let me know via return mail or something? Thank you for your time.

    • অনেক দুঃখ আর ভরাক্রান্ত মন নিয়ে আমার কথা গুলো আমি বলছি। আমি জানি না কাদের মনে এই কথা গুলি দাগ কেটে যাবে। জীবনের প্রতিটি বাঁকে বাঁকে সমাজের প্রতিটি স্থানেই ঠোকর খেতে খেতে এসেছি। আমার জীবনের গল্পে আজ আমি সমাজকে চিন্থিত করলাম যদি পারেন তা’হলে বন্ধু হিসাবে হাত বাড়িয়ে দিবেন। তা’হলে আমি আপনাদের কাছে চিরকৃতজ্ঞ থাকবো।
      আমি মোঃ সাজ্জাদ হোসাইন (সুমন), আমি একজন প্রতিবন্ধী যদিও আমি নিজেকে এই তাকমা লাগাতে নারাজ। এর কারণ হলো আমি তো সমাজে চলাফেরা করতে পারি এবং সমাজের মধ্যে একজন শিক্ষিত ব্যক্তি। সমাজের লোকেরা আমাকে মূল্যায়ণ না করতে পারে তাতে আমার কোন প্রকার আফসোস নাই। অনেক কষ্ট করে লেখাপড়া করতে হয়েছে আমাকে। অনেক কষ্টে আমাকে লেখাপড়া করতে হয়েছে। আমি কোথাও থেকে কোন প্রকার সাহায্য সহযোগিতা পাই নি। আমার পরিবার আর্থিকভাবে তখন বেশ একটা ছিল না। আমি কোন কোচিং সেন্টারে পরতে পারি নাই। আমার আত্মীয়-স্বজন কিংবা বন্ধুদের থেকেও কোন প্রকার সাহায্য সহযোগিতা পাই নি। সমাজে ব্যক্তিরা ত আরো মানুষ খেকো, সবাই বোঝায় আমি সমাজ সচেতন কিন্তু আসলে যে কি তা বোঝা দায়। যদিও এখন আমার তাদের থেকে কিছু চাওয়ার এবং পাওয়ার নেই। এখন একটা জিনিস চাইবো ভালবাসা। আমি অনেক কষ্টে এস.এস.সি ও এইচ.এস.সি পাশ করেছি। এভাবে এস.এস.সি পাশ তারপর আবার এইচ.এস.সি পাশ এখন বাঙলা নিয়ে অর্নাস করছি। যারা এ জীবনের গল্পটি পড়বেন তারা আর যাই হোক এটা মিথ্যা বা বানোয়াট বলে চালিয়ে দিবেন না। আমি মিথ্যা বলতে পারি না, সেই সাথে মিথ্যা বলা পচ্ছন্দ করি না। অনেক কষ্ট করে আমাকে এই পর্যন্ত আসতে হয়েছে। আমার এখন চিন্তাভাবনা হলো এই যে, আল্লাহ্ তা’আলা আমাকে হায়াত বাড়িয়ে দিলে আমি ২০১৪ সালে সরকারী চাকুরীর জন্য চেষ্টা করবো। তবে আমি জানি না যে আমার চাকুরী হবে কিনা যদিও আমার প্রতিবন্ধীর সনদপত্র আছে। তবে সত্যি বলতে কি আমার কম্পিউটার চাকুরী বেশী পচ্ছন্দ। এর প্রধান কারণ হলো আমি কম্পিউটার পরিচালনাতে বেশ পারদর্শি। কম্পিউটার চালাতে আমার খুব ভালোলাগে। আমি যদি কম্পিউটার চাকুরী পাই তা’হলে আমার জীবনের সকল আশার সমাপ্তি ঘটবে। আমি তো প্রতিবন্ধী, তারপরো কম্পিউটার চালাতে পারি এটা আমার ভাগ্য। এখানে একটা ঘটনা আছে, আমি সরকারী ভাবে মাসে ৩০০ টাকা করে পেতাম। আর এই টাকা ছয় মাসে হয় ১৮০০ তাই দিয়ে কম্পিউটার শিখেছি। এখন আমার কোন প্রকার চিন্তা নেই আমি কম্পিউটার কাজ খুব ভালো জানি। আমি জানি কে এ কথা গুলো মনোযোগ দিয়ে পরবেন। আমার পরিবারের মানুষের সংখ্যা ৫ এর মধ্যে মা, বাব, ২ ভাই আর আমি। আমরা দুইভাই প্রতিবন্ধী। আমি তো চলাফেরা করতে পারি কিন্তু আমার ভাই কোন রকমে কথা বলা, চলাফেরা করতে পারে না। আমরা খুব গরীব। আমাদের মাথা গোজার কোন রকম ঠাঁই নাই। তবে বর্তমানে আমি চেষ্টা করছি যেন আমার জীবনে দুঃখ না আসে যদিও পুরোটা আল্লাহ্’র হাতে। আমি আপনাদের বলব সবাই কম্পিউটার চালানো সেখেন, সবার উচিত সফল স্থানে কম্পিউটার শেখা। দয়া করে কেউ সার্টিফিকেটের আশায় শিখবেন না। সার্টিফিকেটের কোন মূল্য নাই যদি আপনি কাজ শিখতে না পারেন। সবাই যদি এটি শেয়ার করতেন তা’হলে ভাল হতো।
      ইতি- মোঃ সাজ্জাদ হোসাইন
      মোবাইলঃ ০১৬৮৬২০৫৬৩৬
      ই-মেইলঃ hsazzad1@gmail.com
      sazzadhossain9911@yahoo.com

    • We only allow direct authorship for people who we know because we want to make sure that no irresponsible writing goes through and tarnish the blogs name. A contributor, after he contributes regularly for a few months and shows his responsibility is opinion writing, are then invited for authorship. We cannot go beyond this policy now because currently the blog runs entirely on voluntary participation of several otherwise very busy people.

      For now please bear with this. If the situation changes, we may go for dedicated paid personnel for blog maintenance and then we can expand the authorship dramatically.

  7. একটা লেখার স্যাম্পল পাঠাইসি, ভাল লাগ্লে একটু জানাবেন, আপনাদের উৎসাহ প্রয়োজন। ধন্যবাদ

  8. ভাইজানেরা একটা লেখার স্যাম্পল পাঠাইলাম, দেইখেন কেমন হইসে। আপনাদের উৎসাহ প্রয়োজন। ধন্যবাদ

  9. কষ্ট বানান ভুল আছে । আশা করি ঠিক করে নিবেন (শেষ বাক্যে ) আর ভ্রমণ কাহিনি কি ছাপা হয়? অথবা বইয়ের রিভিউ বা কোন লেখার সমালচনা ?

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s